ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৭ চৈত্র ১৪২৫, ২১ মার্চ ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

‘শুটিং সেটে বারো মাসই আমের ডাল খেতে হয়’

রাহাত সাইফুল : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-০৬-২১ ৪:৪৯:১৩ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০১-০৬ ১২:৪৪:০২ পিএম

রাহাত সাইফুল : ঢাকাই চলচ্চিত্রের দাপুটে অভিনেতা সাদেক বাচ্চু। ১৯৮৫ সালে শহীদুল আমিন পরিচালিত ‘রামের সুমতি’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে বড় পর্দায় অভিষেক হয় তার। এতে নার্গিসের বিপরীতে অভিনয় করেন তিনি। প্রায় ৪০০টি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন সাদেক বাচ্চু। অসংখ্য জনপ্রিয় সিনেমায় অভিনয় করে দর্শক নন্দিত হয়েছেন। মঞ্চ, টেলিভিশনেও অভিনয় করছেন। এখনো মঞ্চে নিয়মিত কাজ করে যাচ্ছেন তিনি। দেশের খ্যাতিমান নির্মাতা ও শিল্পীদের সঙ্গে কাজ করার সুযোগও হয়েছে তার।

অভিনয় ক্যারিয়ারে নিজের চাওয়ার তুলনায় অনেক বেশি পেয়েছেন সাদেক বাচ্চু। এখন আর তার চাওয়া পাওয়ার কিছু নেই বলে জানান তিনি। দীর্ঘ অভিনয় ক্যারিয়ারে চলচ্চিত্রের নানা উত্থান-পতন দেখেছেন তিনি। প্রবীণ বয়সে পা রেখে এখন আর চলচ্চিত্রের নেতিবাচক দিকগুলো নিয়ে মুখ খুলে বিতর্কে জড়াতে রাজি নন তিনি। রাইজিংবিডির সঙ্গে আলাপকালে গুণী এই অভিনেতা বলেন, ‘যখন হিমালয়ে ধস নামে তখন আমার মতো একজন সাদেক বাচ্চু তা ঠেলে ধরে রাখতে পারবে না। মৃত্যুর মুখ থেকে আল্লাহ ফিরিয়ে এনেছেন এখন আর কারো মনে কষ্ট দিতে চাই না।’

মুখে কিছু না বললেও চলচ্চিত্র শিল্পের মন্দা অবস্থা নিয়ে অনেকের প্রতি রয়েছে তার ক্ষোভ। বিষয়টি নিয়ে যথেষ্ট উদ্বিগ্ন তিনি। গতকাল বুধবার রাইজিংবিডির সঙ্গে আলাপকালে চলচ্চিত্রের বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে কথা বলেন এই অভিনেতা।

চলচ্চিত্রের অব্যবস্থাপনা নিয়ে তিনি বলেন, ‘শীত, বর্ষা, গ্রীষ্ম নেই, শুটিং সেটে বারো মাসই আমের ডাল খেতে হয়। এখন অধিকাংশ শুটিং হয় পরিকল্পনা ছাড়া। কোন শিল্পীর কখন কাজ তা পরিচালক ঠিক করে বলতে পারেন না। যে কারণে দেখা যায় শিল্পীরা শুটিং সেটে এসে ঘণ্টার পর ঘণ্টা বসে থাকেন কিন্তু শুটিং হয় না। এসব কারণে খাবার কখনই সঠিক সময়ে খাওয়া হয় না বরং পরে খেতে হয়। এতে করে ডাল নষ্ট হয়ে যায়। এই ভুল এড়াতে অনেক সময়ই বলা হয় ডালে আম দেয়া হয়েছে। আমরা শহীদুল আলম খোকন ও সোহেল রানা সাহেবের শুটিং করেছি। তারা ঠিক দুপুর ২টায় খাবার দিতেন। তাদের সেটে বসে থাকতে হয়নি।’

নকল করে সিনেমা নির্মাণ নিয়ে বলেন, ‘এখন তামিল, তেলুগু সিনেমা মোবাইলে দেখে হুবহু শট দিতে বলেন কিছু পরিচালক। আমরাও বাধ্য হয়েই এই কাজ করি। আমার প্রশ্ন হচ্ছে, যে সব দৃশ্যের হুবহু শট দিচ্ছি ওইসব শিল্পী ও কালচারের সঙ্গে আমার মিল আছে কিনা? যে শিল্পীর সংলাপ ও চরিত্রে আমি অভিনয় করছি আমার কি তার মতো ফিগার? তাই যদি না হয় তাহলে তাদের হুবহু নকল করছি কেন? তাদের কাছ থেকে শিখে আমাদের মতো করে নির্মাণ করতে পারি।’

তিনি আরো বলেন, ‘ছোটবেলায় বুড়ি দাদির গল্প শুনতাম। দাদির মুখ থেকে থুথু এসে মুখে লাগত অথবা মুখের গন্ধ আসতো। তারপরও দাদির গল্প শোনার জন্য আকুলতা ছিল। এটা সবার জীবনেই ঘটেছে। গন্ধ, থুথু খেয়েও কেন এত আকুলতা? কারণ দাদির গল্প এবং গল্প বলার ধরণটা ছিল ভালো লাগার মতো। সিনেমার গল্প ও গল্প বলার ধরণ ভালো থাকলে হলের দুর্গন্ধ, নোংড়া পরিবেশেও সিনেমা দেখতে মানুষ প্রেক্ষাগৃহে যাবে। মৌলিক গল্প দরকার। কারণ ছাড়া সিনেমায় মারামারি কেউ দেখতে চায় না। কারণ ছাড়া অস্ট্রেলিয়া শুটিং কেউ পছন্দ করে না।’

পরিচালকদের সম্মানবোধ অনেকটাই লোভ পেয়েছে বলে তিনি আক্ষেপ করে বলেন, ‘মাঝে মাঝে আমাদের পরিচালকদের কথা মনে করলে কান্নায় বুক ফেটে যায়। খান আতাউর রহমান মেকআপ রুপে ঢুকলে মনে হত যে, রাজ্জাক ভাইকে কারেন্ট শক করেছে। সঙ্গে সঙ্গে উঠে দাঁড়িয়েছেন। এখন মেকআপ রুমে ঢুকেই দেখবেন হিরো হিরোইনরা পা তুলে চেয়ারে বসে আছেন। পরিচালক এসে পাশে দাঁড়িয়ে বলেন, ‘এখন শট আছে’। উত্তরে শিল্পী বলেন, ‘যান যান আসতেছি।’ যে ঘরের ছেলের ধমকে বাবা মাথা নত করে সেই সংসার কি সুখের হতে পারে? পরিচালকের যে মেধা, স্বাধীনতা এটা এখন প্রায় উঠে গেছে। আজকে একটা মেধা সম্পন্ন পরিচালক আসলেই নকল করতে হয়। তাদেরকে ছেড়ে দেয়া উচিৎ মৌলিক ও স্বাধীনভাবে কাজ করার জন্য।’

সাদেক বাচ্চু সরকারি চাকরি করতেন। তাই অভিনয়ের জন্য মাঝে মাঝে ছুটি নিতে হতো। এজন্য অনেক সময় তার সহকর্মীদের তিরস্কার শুনতে হতো। এ প্রসঙ্গে সাদেক বাচ্চু বলেন, ‘অভিনয় জীবনের শুরুতে অভিনয় করতাম বলে অনেকে তিরস্কার করত। ‘চাঁদনী’ সিনেমা সুপার হিট হওয়ার পর তারাই আবার বুকে জড়িয়ে ধরেছেন। তাদের বিয়ে অনুষ্ঠানসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানে আমাকে দাওয়াত দিত, সবার সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিত। এটা আমার খুব ভালো লাগত।’’

সাদেক বাচ্চু অভিনীত ‘সুপার হিরো’, ‘চিটাগাইঙ্গা পোয়া নোয়াখাইল্লা মাইয়া’ নামের সিনেমা এবারের ঈদে মুক্তি পেয়েছে। তিনি এখন ‘প্রতিহিংসার আগুন’সহ বেশকিছু সিনেমার শুটিং নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন।

 

 

 

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/২১ জুন ২০১৮/রাহাত/শান্ত

Walton Laptop
 
     
Walton AC