ঢাকা, মঙ্গলবার, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ২১ মে ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

আমি খুবই ভাগ্যবতী : শার্লিন

আমিনুল ইসলাম শান্ত : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০১-০৫ ৮:৩৮:২২ এএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০১-০৬ ১২:৪৩:৫৬ পিএম
শার্লিন ফারজানা (অলংকরণ : মো. আরিফ আহমেদ)

আমিনুল ইসলাম শান্ত : মডেল-অভিনেত্রী শার্লিন ফারজানা। অমিতাভ রেজার গ্রামীণফোন ও গাজী শুভ্রর সিলন চায়ের বিজ্ঞাপনে মডেল হয়ে আলোচনায় উঠে আসেন তিনি। এরপর বেশ কিছু নাটক-টেলিফিল্মে অভিনয় করে দর্শক হৃদয়ে জায়গা করে নেন এই অভিনেত্রী। ‘ঊনপঞ্চাশ বাতাস’ নামের চলচ্চিত্রের মাধ্যমে বড় পর্দায় অভিষেক হতে যাচ্ছে তার। অভিনয়, বিয়েসহ নানা বিষয়ে রাইজিংবিডির সঙ্গে কথা বলেছেন শার্লিন। এ আলাপচারিতার বিশেষ অংশ পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো।

রাইজিংবিডি : গত ৩ জানুয়ারি আপনার জন্মদিন ছিল। দিনটি কেমন কাটালেন?
শার্লিন : আলহামদুলিল্লাহ, ভালো কেটেছে। জন্মদিনে আগে বন্ধু বা আত্মীয়-স্বজনের সঙ্গে সময় দেওয়া হতো কিন্তু আম্মু মারা যাওয়ার পর থেকে দিনটি বাসায় বাবার সঙ্গে কাটাই।

রাইজিংবিডি : সদ্য বিদায়ী ২০১৮ সালে আপনার প্রাপ্তি-অপ্রাপ্তির গল্প শুনতে চাই।
শার্লিন : আলহামদুলিল্লাহ! গত বছরটিও ভালো কেটেছে। অপ্রাপ্তির কথা যদি বলি-২০১৭ সালে মাকে হারিয়েছি-এ জায়গাটি ফাঁকা। এই শূন্যতা কখনো পূরণ হবে না। কাউকে হারালে তো ফিরে পাওয়া যায় না। কিন্তু আল্লাহ তাআলা সেই জায়গায় একটা ভারসাম্য তৈরি করে দেন। গত বছর ‘ঊনপঞ্চাশ বাতাস’ সিনেমায় কাজ করেছি। এটি আমার প্রথম সিনেমা। এটা আমার জন্য অনেক বড় প্রাপ্তি ছিল। মাসুদ হাসান উজ্জ্বল ভাইয়ের মতো একজন নির্মাতা  কাজের জন্য নির্বাচন করেছেন, এটা আমার কাছে অনেক বড় একটি প্রাপ্তি। কারণ অভিনেত্রী হিসেবে এখনো আমি পুরোপুরি তৈরি না। পরিপক্ক জায়গায় কবে যেতে পারব তারও ঠিক নেই। সেখান থেকে এরকম একটি সিনেমায় কাজ করতে পারাটা অনেক বড় প্রাপ্তি। আর অপ্রাপ্তিটা নেই। আলহামদুলিল্লাহ ভালোই ছিলাম।

রাইজিংবিডি : ‘ঊনপঞ্চাশ বাতাস’ আপনার অভিষেক চলচ্চিত্র হতে যাচ্ছে। সিনেমাটির কাজ নিয়ে আপনি কতটা তৃপ্ত?
শার্লিন : চলচ্চিত্রের কাজ হিসেবে না দেখে শুধু কাজ হিসেবে যদি দেখি-তবে আমি খুবই ভাগ্যবতী। কারণ আমার শুরুটা এমন একটি কাজ দিয়ে হয়েছে। আর চলচ্চিত্র শিল্পী হিসেবে আমি অনেক অনেক ভাগ্যবতী। চলচ্চিত্রের গল্প ঠিকঠাক পাওয়াটা খুবই কষ্টসাধ্য ব্যাপার। সেখানে এরকম একটি গল্পের মাধ্যমে কাজ শুরু করতে পেরেছি, যা আমার সারা জীবন কাজে লাগবে। ‘ঊনপঞ্চাশ বাতাস’ আমার জীবনে দ্বিতীয়বার আসবে না, এটা আমি নিশ্চিত। এটা আমার জীবনে শ্রেষ্ঠ কাজ হবে। সেটা নির্মাতা, গল্প, সহশিল্পী সব মিলিয়ে বলছি।

রাইজিংবিডি :  নতুন কোনো চলচ্চিত্রে কাজ করছেন?
শার্লিন : শবনম ফেরদৌসী সরকারি অনুদানে একটি চলচ্চিত্র নির্মাণ করছেন। এতে কাজের বিষয়ে কথা হয়েছে। পরশুদিন এতে কাজের বিষয়ে কথা হয়েছে। এ সিনেমার গল্পটাও সুন্দর। এতে কলকাতার পরমব্রত অভিনয় করবেন। সম্ভবত আগামী ফেব্রুয়ারি মাসে সিনেমাটির কাজ শুরু করবেন। আমিও সিনেমাটিতে কাজ করছি। এটি আমার দ্বিতীয় সিনেমা হতে যাচ্ছে। ভাগ্য একটা ব্যাপার-এক্ষেত্রে (চলচ্চিত্র) মেধার চেয়ে সম্ভবত ভাগ্যটা বেশি কাজ করে। সম্ভবত এক্ষেত্রে আমি ভাগ্যবতী।

রাইজিংবিডি : প্রথম সিনেমা মুক্তির আগেই দ্বিতীয় সিনেমার কাজ শুরু করতে যাচ্ছেন। তবে কী বড় পর্দায় নিয়মিত হচ্ছেন?
শার্লিন : অভিনয় নিয়মিত করব আর সেটা চলচ্চিত্রে।

রাইজিংবিডি : কোন ধরনের চলচ্চিত্রে কাজ করতে চান?
শার্লিন : পরিপূর্ণভাবে চলচ্চিত্রের সঙ্গে যুক্ত হতে চাই, সেটা যেকোনো ঘরানার চলচ্চিত্রে। তবে সম্ভবত পাশ্চাত্য স্টাইলের সঙ্গে আমার ঠিক যায় না। আমি বাঙালি, সেটা মানসিকভাবে, চিন্তা-চেতনায়। দৈনন্দিন কথোপকথনে পারতপক্ষে আমি ইংরেজি শব্দ ব্যবহার করি না। বাংলায় কথা বলতেই স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি। যেসব সিনেমায় আমাকে ওভাবে দেখানো যাবে, সেসব সিনেমা আমার প্রাধান্য থাকবে। শিল্পী হিসেবে যেকোনো কাজই করতে রাজি। তবে অবশ্যই সে সিনেমা মানসম্পন্ন হতে হবে। গল্পে যুক্তিকতা, ধারাবাহিকতা থাকবে না-সে ধরনের গল্পে আমি কাজ করব না।

রাইজিংবিডি : আপনার একাডেমিক পড়াশোনার বিষয়ে জানতে চাই।
শার্লিন : আমি আইন বিষয়ে পড়াশোনা করেছি। ইউনিভার্সিটি অব লন্ডনের আন্ডারে এল এল বি-তে অনার্স করেছি। সিয়াম (চিত্রনায়ক সিয়াম) আমার ক্লাসমেট ছিল।

রাইজিংবিডি : আপনার বন্ধু (সিয়াম) তো বিয়ে করে ফেললেন। বিয়ে নিয়ে আপনার পরিকল্পনা কী ?
শার্লিন : আমার ইচ্ছে বাবার সঙ্গে থাকার। বিয়ে করে বাবাকে এখন একা রেখে যাওয়ার ইচ্ছে নেই। কারণ আম্মু চলে যাওয়ার পর বাবা একা হয়ে গেছেন। বাবার জন্য শুটিং ছাড়া আমি বাসা থেকে বের হই না বললেই চলে। আমার প্রধান কাজ এখন বাবাকে সময় দেওয়া। এই মুহূর্তে বিয়ে করে অন্যের বাড়িতে যেতে চাই না। যদি কেউ ঘর জামাই হতে চায় তবে আমি বিয়ে করতে রাজি আছি।

রাইজিংবিডি : বিয়ে মানুষের জীবনে গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ। আজ করছেন না কিন্তু কয়েক বছর পর হলেও তো করতেই হবে-
শার্লিন : আমি না চাইলেও বাবা অপেক্ষা করবেন না। সম্ভবত চলতি বছরেই তিনি বিয়ের আয়োজন করে ফেলবেন। বিয়ে করব কিন্তু আমার দুটি শর্ত আছে। এক. আমি বাবার সঙ্গে থাকব, আর সেটা সে (বর) কীভাবে ব্যবস্থা করবে তা জানি না। আমি বাবার সঙ্গে অনেক সময় কাটাব এই শর্তে তাকে (বর) রাজি থাকতে হবে। দুই. আমার পরিবার খুব ধর্মভীরু। আমার ভবিষ্যৎ স্বামীকেও ধর্মভীরু হতে হবে। এই দুই শর্ত পূরণ হলে চলতি বছরই বিয়ে করার সম্ভাবনা রয়েছে।

রাইজিংবিডি : ২০১৮ সালে আপনার অভিনীত সেরা পাঁচটি কাজের নাম জানতে চাই।
শার্লিন : ২০১৭ থেকে বলি। মাসুদ হাসান উজ্জ্বল ভাইয়ের ‘দাস কেবিন’ আমার প্রিয় একটি কাজ। ‘ঊনপঞ্চাশ বাতাস’ সিনেমাটি অবশ্যই অন্যতম প্রধান একটি কাজ। অভিজ্ঞতার আলোকে ‘ফেলুদা’ প্রিয় একটি কাজ। পরমব্রত এটি পরিচালনা করেছে। পরমব্রতর নির্দেশনা খুবই চমৎকার। এর শুটিংয়ে আমি অনেক কিছু শিখেছি। আর মেহেদী হাসান জনির সঙ্গে কাজ করে খুব আরাম পাই। ওর সঙ্গে করা সব কাজগুলো আমার পছন্দ। ওর সঙ্গে একটি কাজ হচ্ছে ‘তুখোড় প্রেমের বাঁধন’। এটিও আমার অনেক পছন্দ।

রাইজিংবিডি : আপনার বিশেষ কোনো লক্ষ্য আছে, যা নতুন বছরে পূরণ করতে চান?
শার্লিন : হ্যাঁ, আছে। আমি খুব দেরি করে ঘুম থেকে উঠি। এ বছর এই অভ্যাসটা বদলাতে চাই। আমার মনে হয়, এই অভ্যাস বদলালে আমার অন্যান্য লক্ষ্যও পূরণ হয়ে যাবে। এ বছরই এই লক্ষ্য ঠিক করেছি। এখন ফজরের ওয়াক্তে ঘুম থেকে উঠে যাই। এটা নিয়মিতভাবে পালন করছি। আর শুটিং সেটেও দেরি করে যেতে চাই না।

রাইজিংবিডি : অভিনয় গুণে যশ-খ্যাতি পেয়েছেন। ব্যক্তিগতভাবে এমন কোনো কাজ করছেন কী যা মানুষের জন্য কল্যাণকর?
শার্লিন : পরশু দিন আমি ও আমার ছোট ভাই শীতার্তদের মধ্যে কম্বল বিতরণ করেছি। জন্মদিন উপলক্ষে এটা আমি করেছি। কিন্তু এটা কী মানুষের জন্য কল্যাণকর? আসলে এটা তো একজন সাধারণ মানুষও করে থাকেন। তবে নিজস্ব গণ্ডির ভেতরে থেকে এরকম ছোট ছোট কাজ করা হয়। কিন্তু প্রাতিষ্ঠানিকভাবে কোনো কিছুর সঙ্গে সম্পৃক্ত না। ‘চ্যারিটি বিগিনিং এট হোম’ মাদার তেরেসার এই উক্তিটি আমি মানি। কবির নামে আমাদের এক ড্রাইভার ছিল। গত বছর ও মারা গেছে। কবির আমাদের সঙ্গে দশ বছর ছিল। কবিরের পরিবারের টেক কেয়ার আমি করছি। আমি যা আয় করি, সেখান থেকে একটা অংশ কবিরের পরিবারকে দিয়ে দিই। আমি যতদিন বেঁচে থাকব ততদিন এটা করে যাব। প্রাতিষ্ঠানিক কাজের চেয়ে এগুলো আমার কাছে বেশি গুরুত্বপূর্ণ মনে হয়।

রাইজিংবিডি : সময় দেওয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।
শার্লিন : আপনাকেও ধন্যবাদ।




রাইজিংবিডি/ঢাকা/৫ জানুয়ারি ২০১৯/শান্ত/ইভা

Walton Laptop
     
Walton AC
Marcel Fridge